অভিযুক্ত শিক্ষার্থী আবার রিমান্ডে

শিক্ষকের গায়ে কেরোসিন

আজাদী প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার , ১১ জুলাই, ২০১৯ at ১১:০৫ পূর্বাহ্ণ
16

‘তিন যুক্তিতে’ ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স অ্যান্ড টেকনোলজির (ইউএসটিসি) সেই শিক্ষার্থীকে আবারো রিমান্ডে পাঠাল আদালত। ইউএসটিসির ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক মাসুদ মাহমুদের গায়ে কেরোসিন দেয়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার শিক্ষার্থী মাহমুদুল হাসানকে দ্বিতীয় দফায় একদিনের পুলিশ রিমান্ডে নেয়ার অনুমতি দিল আদালত। গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শফিউদ্দীন এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামির ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিলেন। শুনানি শেষে আদালত একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। এদিকে শুনানিতে রিমান্ডের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে সিএমপির সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) কাজী শাহাবুদ্দিন আহমেদ জানান, আমরা তিন যুক্তিতে এ শিক্ষার্থীকে রিমান্ডে দিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের আওতায় আনার প্রয়োজনীয়তার কথা আদালতের সামনে উপস্থাপন করেছি। শুনানিতে তিনি জানান, জন্মদাতা মা-বাবার পরের স্থানটি হচ্ছে শিক্ষকের। সেই শিক্ষককে সম্মান করার পরিবর্তে যে শিক্ষার্থী তাঁকে পুড়িয়ে মারতে চায় সে পৃথিবীর যে কোনো ব্যক্তিকে পুড়িয়ে মারতে পারে।

দ্বিতীয়ত, ইউএসটিসির আশেপাশে কোন কেরোসিনের দোকান নেই। শিক্ষককে পুড়িয়ে মারার চেষ্টায় যে কেরোসিনের ব্যবহার করা হয়েছে তার উৎস জানা দরকার। তৃতীয়ত, কেরোসিনের বিষয়টি পূর্ব পরিকল্পিত। এ ধরনের ভয়াবহ পরিকল্পনার সাথে আরো কেউ জড়িত থাকতে পারে। তাদেরকে বের করা দরকার। এই তিন যুক্তি আদালতের সামনে উপস্থাপনের পর আদালত শিক্ষার্থীর একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
প্রসঙ্গত: এর আগে ইউএসটিসি’র ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার দিলীপ কুমার বড়ুয়া বাদি হয়ে খুলসী থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা করার পর আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর প্রথম দফায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইদিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। গতকাল দ্বিতীয় দফায় আরো একদিনের রিমান্ডে গেল ইউএসটিসির ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের এ শিক্ষার্থী।

x