অবৈধভাবে চলা ১৫ টেক্সি ফেলে দেওয়া হলো খাদে

পটিয়ায় অভিযান, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে চালকদের ব্যারিকেড

আজাদী প্রতিবেদন

শনিবার , ৯ মার্চ, ২০১৯ at ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ
1726

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া অংশের বিভিন্ন স্পটে অবৈধভাবে চলাচলকারী অন্তত ১৫টি সিএনজি টেক্সি খাদে ফেলে দেওয়া হয়েছে। হাইওয়ে পুলিশ গাড়িগুলো ফেলে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন চালকরা। গতকাল শুক্রবার সকাল ১১টায় মহাসড়কের কমল মুন্সিরহাট থেকে খরনা রাস্তার মাথা পর্যন্ত এলাকায় এসব টেক্সি খাদে ফেলে দেওয়া হয়। প্রতিবাদে কমল মুন্সিরহাট চক্রশালা স্কুলের সামনে সিএনজি চালকরা ১৫ মিনিট মহাসড়কে টেক্সি উল্টে ব্যারিকেড দিয়ে প্রতিবাদ জানায়। পরে পুলিশ আসার খবরে টেক্সিগুলো নিয়ে তারা পালিয়ে যায়। অন্যদিকে, ২০টি টেক্সি জব্দ করে মামলা দিয়েছে হাইওয়ে পুলিশ। জানা যায়, ২০১৬ সালে সরকারি এক আদেশে দেশের সকল মহাসড়কে সিএনজি টেক্সি চলাচল অবৈধ ঘোষণা করা হয়। এ আদেশ উপেক্ষা করে পটিয়ায় দীর্ঘদিন ধরে মহাসড়কে অবৈধভাবে টেক্সি চালাচ্ছিলেন চালকেরা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল সকাল ১১টা থেকে মহাসড়কের পটিয়া কমল মুন্সিরহাট থেকে খরনা রাস্তার মাথা পর্যন্ত এলাকায় অবৈধভাবে চলাচলকারী অন্তত ১৫টি টেক্সি খাদে ফেলে দেয় হাইওয়ে পুলিশ। চালকরা সিএনজিগুলো সড়কে তুলে উল্টে দিয়ে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক ব্যারিকেড দেন। এসময় মহাসড়কের দুই পাশে অনেকক্ষণ যানজট সৃষ্টি হয়। পর্যটকবাহী গাড়ি দুর্ভোগের শিকার হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে হাইওয়ে পুলিশের এক অফিসার বলেন, টেক্সিগুলো ফেলে দিতে তারা বাধ্য হয়েছেন।
সিএনজি চালক আহমদুর রহমান অভিযোগ করেন, তিনি মহাসড়কের জলুদারদিঘি থেকে পটিয়া সদরে যাত্রী নিয়ে যাচ্ছিলেন। যাওয়ার পথে কমল মুন্সিরহাট চক্রশালা স্কুল এলাকায় যাত্রী নামিয়ে দিয়ে তার টেঙিটি খাদে ফেলে দেয় পুলিশ। মামলা দিতে পারত। কিন্তু খাদে ফেলে দেওয়ায় গাড়ি দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে ক্ষতি হয়েছে। তার মতো যাদের ওই স্থানে পেয়েছে তাদের টেঙিগুলোও একইভাবে ফেলে দেওয়া হয়। তাই বাধ্য হয়ে তারা সড়কে সিএনজি উল্টে দিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে পটিয়া ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান, মহাসড়কে অবৈধভাবে সিএনজি টেঙি চলাচল রোধ করতে তারা অভিযান চালাচ্ছেন। শুক্রবার অভিযান চালিয়ে ২০টি সিএনজি জব্দ করে মামলা দেওয়া হয়েছে। এসব টেঙির কারণে মহাসড়কে দুর্ঘটনা বাড়ছে। খাদে সিএনজি ফেলে দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, হাইওয়ে পুলিশ গাড়িগুলো খাদে ফেলেনি। চালকরাই ভয়ে টেঙিগুলো খাদে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়।

x