অপহরণ নাটকের পর চুরির মামলায় আটক

রাউজান প্রতিনিধি

সোমবার , ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ at ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ
442

দক্ষিণ রাউজানের চৌধুরীহাট ঘাটকুল এলাকার প্রবাসী এয়াকুব আলী প্রকাশ শেখ আহমদের স্ত্রী নাসিমা আকতার(২৮) পরকিয়ায় জড়িয়ে ২০১৭ সালের ৬ অক্টোবর ভোরে স্বামীর ঘর থেকে নিখোঁজ হয়। ওই সময় অভিযোগ উঠে, দুই অবুঝ সন্তান ঘরে রেখে নাসিমা পালিয়েছিল সিএনজি চালক ছাদেকের সাথে। ছাদেক ওই এলাকার হাবিবের পুত্র। গৃহবধূ নাসিমা দক্ষিণ রাউজানের গশ্চি নয়াহাটের মৃত আবদুল কাদেরের কন্যা।
জানা যায়- নাসিমা পরকিয়ায় জড়িয়ে ঘর ছাড়লেও ওই ঘটনা নিয়ে নাটক সাজানোর চেষ্টা করে নাসিমার পরিবারের এক সদস্য। তিনি নাসিমাকে অপহরণ করা হয়েছে অভিযোগ করে আদালতে মামলা করেন। মামলায় নাসিমার ভাসুর জালাল, সিএনজি চালক ছাদেকসহ কয়েকজনকে আসামী করা হয়। আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধারের জন্য পিআইবিকে দায়িত্ব দেন। পিআইবি’র সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এতদিন এবিষয় নিয়ে তৎপর ছিলেন। এদিকে গত ১৬ অক্টোবর নাসিমার স্বামী শেখ আহমদ প্রবাস থেকে দেশে ফিরেন। তিনি পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশিদের কাছ থেকে স্ত্রী নাসিমার ঘর ছাড়ার ঘটনা শুনেন। এরপর ৯ লাখ টাকা ও ১৮ ভরি স্বর্ণ চুরি করে পালানোর অভিযোগে স্ত্রীসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে গত ২২ অক্টোবর তিনি বাদী হয়ে রাউজান থানায় মামলা করেন। মামলায় সিএনজি চালক ছাদেক, স্ত্রী নাসিমাসহ কয়েকজনকে আসামি করা হয়। জানা যায়- চুরির মামলার পর আসামিদের কয়েকজন আদালত থেকে জামিন নেন। তবে জামিন নিতে আদালতে যায়নি নাসিমা ও ছাদেক।
চুরির মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নোয়াপাড়া ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই জাবেদ মিয়া বলেন- গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ৯ ফেব্রুয়ারি চন্দনাইশের একটি ভাড়া বাসা থেকে নাসিমা ও ছাদেককে আটক করে রাউজান থানায় আনা হয়। এরপর থানায় নাসিমা স্বীকার করেন- তাকে কেউ অপহরণ করেনি। তিনি স্বামীর ঘর ছেড়েছেন ছাদেককে ভালবেসে। গতকাল তাদেরকে চুরির মামলায় আটক দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়। এভাবে অপহরণ মামলার অবসান হয়।

x