অনুষ্ঠান ঘোষক ও উপস্থাপক নিয়োগে যোগ্যরাই যেন সুযোগ পায়

আয়শা আদৃতা

বৃহস্পতিবার , ১১ জুলাই, ২০১৯ at ১০:৫১ পূর্বাহ্ণ
9

অনুষ্ঠান ঘোষক ও উপস্থাপক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রচার করছে বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্র। নিঃসন্দেহে উপস্থাপনার মান বাড়াতে নতুন উপস্থাপকের প্রয়োজন। মাঝেমধ্যেই নতুনদের সুযোগ দেয়া হয় অডিশনের মাধ্যমে। কিন্তু দেখা যায়, যারা আসেন (যদিও কারা আসেন, সেটা দর্শকের জানার সুযোগ নেই) তাদের সবাই দর্শকের মন জয় করতে পারেন না। তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন আসে, যাচাই বাছাইয়ের পর যাদের নেয়া হলো তাদের পারফর্মেন্স এতটা কাঁচা কেন। তাহলে কী নিয়োগপ্রক্রিয়া নিয়ে যেসব অভিযোগ আসে, সেসবকে সত্যি ধরে নেয়া যায়? পুরোনো অভিযোগ মাথায় রেখেই কর্তৃপক্ষকে সামনের দিকে আগাতে হবে। নিয়োগ প্রক্রিয়া যেন স্বচ্ছ হয়, দক্ষ লোকজনই যাতে সুযোগ পায় সেদিকেই সবচেয়ে গুরুত্ব দেয়া প্রয়োজন। তাহলে অনুষ্ঠানের মানই বাড়বে। তাছাড়া উপস্থাপনা এবং অনুষ্ঠান ঘোষণাই নতুনত্ব আনা প্রয়োজন। দীর্ঘদিন ধরে একঘেঁয়েমিপূর্ণ উপস্থাপনা ও অনুষ্ঠান ঘোষণা দেখতে দেখতে দর্শক যথেষ্ট বিরক্ত।
প্রযুক্তি বিষয়ক অনুষ্ঠান প্রযুক্তি দুনিয়া। প্রযুক্তির এ যুগে এ জাতীয় অনুষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা খুব। এ বিষয়ে আগেও এ আলোচনায় আলোকপাত করা হয়েছে। সাধারণ মান বিবেচনায় অনুষ্ঠানটিকে মানোত্তীর্ণ বলা যেতে পারে। তবে, যতটা আধুনিক তথ্যসমৃদ্ধ হওয়া প্রয়োজন ততটা নয়। এ অনুষ্ঠানে মূলত প্রযুক্তি দুনিয়ার নানা খবরাখবর, যেসব ইন্টারনেট ঘেঁটে পাওয়া যায় তাই প্রচার করা হয়। প্রযুক্তিতে বাংলাদেশও খুব একটা পিছিয়ে নেই। বাংলাদেশের তরুণরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে যাচ্ছে প্রযুক্তি ক্ষেত্রে নিজেদের এগিয়ে নিতে, প্রতিষ্ঠিত করতে। এ পর্যন্ত বাংলাদেশের উদ্ভাবনও কম নয়। প্রায় সময় পত্রপত্রিকায় সেসব উদ্ভাবনের খবর প্রকাশিত হয়। কিন্তু বিটিভি চট্টগ্রামের প্রযুক্তি বিষয়ক একমাত্র অনুষ্ঠানটিতে বাংলাদেশের তরুণদের উদ্ভাবন-সাফল্যের কোনো খবর নেই। এটার একটা কারণ হতে পারে, বাংলাদেশের তরুণদের এসব খবর ইন্টারনেট ঘাঁটলেই রেডিমেড পাওয়া যায় না। কষ্ট করে তৈরি করে নিতে হয়। সেক্ষেত্রে বিটিভি চট্টগ্রামের অনুষ্ঠান টিম দুর্বল। হাতের কাছে যা পাওয়া যায় তাই দিয়ে অনুষ্ঠান চালিয়ে দেওয়ার মানসিকতা শুধু ‘প্রযুক্তি দুনিয়া’তেই নয়, আরো বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানে দেখা যায়। একটি অনুষ্ঠানকে দর্শকের দোড়গোড়ায় পৌঁছাতে হলে অনেক পরিশ্রম করতে হয়, এ কথাটা নির্মাতা-উপস্থাপকের মনে রাখা প্রয়োজন। প্রযুক্তি দুনিয়া উপস্থাপনা করেন নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী।
যতই দিন যাচ্ছে, ততই ঢাকা কেন্দ্রের অনুষ্ঠানের ওপর নির্ভরতা বাড়ছে বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের। প্রতিদিন একাধিক অনুষ্ঠানের ভিড়ে চট্টগ্রাম কেন্দ্রের অনুষ্ঠান খুঁজে পাওয়া মুশকিল। এভাবে ঢাকা নির্ভরতা বাড়তে থাকলে একসময় চট্টগ্রামে অনুষ্ঠান নির্মাণ ও প্রচার গৌণ হয়ে আসবে। যদিও চট্টগ্রাম কেন্দ্রের অনুষ্ঠানের তুলনায় ঢাকা কেন্দ্রর অনুষ্ঠানের মান হাজারগুণ ভালো। সেসব অনুষ্ঠান দেখে মনও ভরে। কিন্তু আল্টিমেটলি এতে করে চট্টগ্রাম কেন্দ্রেরই ক্ষতি হবে, চট্টগ্রামের শিল্পী-কলাকুশলী-দর্শক সর্বোপরি চট্টগ্রামেরই ক্ষতি হবে। তাই ঢাকার অনুষ্ঠানের প্রতি নির্ভরতা কমিয়ে মৌলিক অনুষ্ঠানের ওপর জোর দিতে হবে। যে উদ্দেশ্য নিয়ে চট্টগ্রামে আলাদা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে সেটা যেন কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে ব্যাপারে যত্নবান হবেন কর্তৃপক্ষ -সে প্রত্যাশায় রইল।

x