অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ ছিলেন আলোকিত ব্যক্তিত্ব

স্মরণসভায় বক্তাদের অভিমত

শনিবার , ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ at ৫:৫৮ পূর্বাহ্ণ
73

বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে গত ২১ ডিসেম্বর বাদে আছর কদম মোবারক জামে মসজিদে “সাংবাদিকতা জগতের বিবেকের বাতিঘর অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ শিরোনামে আলোচনা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের কার্যকরী সভাপতি ও মরহুমের সন্তান সাপ্তাহিক শ্লোগান সম্পাদক মোহাম্মদ জহির এতে সভাপতিত্ব করেন। “সাংবাদিকতা জগতের বিবেকের বাতিঘর অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ” শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা স্মৃতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুর রহিম। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নঈম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। প্রধান আলোচক ছিলেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও রূপালী ব্যাংকের পরিচালক মো. আবু সুফিয়ান। বক্তব্য দেন কদম মোবারক জামে মসজিদের খতিব মাওলানা বদিউল আলম রেজভি, ইমাম হাফেজ একরামুল হক, মাওলানা আইয়ুব আলী, আবুল কাসেম, রেদুয়ানুল হক, আহমদ ছোবহান, আসিফ ইকবাল, রাশেদ মাহমুদ পিয়াস প্রমুখ। মিলাদ ও মুনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা বদিউল আলম রেজভি। প্রধান অতিথি বলেন, অধ্যাপক খালেদ সকল ক্ষেত্রে সৎ ও নীতিনিষ্ঠ ছিলেন। তার ব্যক্তি জীবন ছিল অনাড়ম্বর। প্রধান আলোচক অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদকে স্বাধীনতা পদকে ভূষিত করার দাবি জানান। তিনি বলেন, সাংবাদিক হিসেবে তার লেখনি সর্বদা সত্য আর ন্যায়ের পক্ষে ছিল সোচ্চার। নির্লোভ দৃঢ়চিত্ত ব্যক্তিত্ব অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদের কর্ম জীবন ছিল বহুমুখী। তিনি প্রজন্ম পরম্পরায় অধ্যাপক খালেদের জীবনচরিত অনুসরণের আহ্বান জানান। আবদুর রহিম বলেন, দৈনিক আজাদীর সম্পাদক ছিলেন তিনি। তিনি ছিলেন সাংবাদিকতা জগতের বিবেকের বাতিঘর, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, সংবিধান প্রণেতা, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ঘনিষ্ঠ সহচর। অসাম্প্রদায়িক চেতনার প্রতীক অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ অনন্য সাধারণ এক ব্যক্তিত্ব। সাংবাদিকতা, সমাজ সেবা, শিক্ষা, রাজনীতি, সংস্কৃতিসহ সর্বত্র ছিল তার বিচরণ। আমাদের আলোকিত পুরুষ ও আদর্শবান ব্যক্তিত্ব অধ্যাপক খালেদ ছিলেন নির্লোভ ও নিঃস্বার্থ মানুষ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x