অজিত রায় : সত্য, শুদ্ধতা ও সুন্দরের শিল্পী

বুধবার , ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৬:০৪ পূর্বাহ্ণ
22

অজিত রায় – বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও কণ্ঠশিল্পী। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অন্যতম সংগঠক হিসেবেও তাঁর ভূমিকা ছিল অনন্য। দেশের গানকে সবার মাঝে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত উদ্যোগে তিনি বিশেষ ভূমিকা রেখে গেছেন। আজ প্রথিতযশা এই কণ্ঠশিল্পীর অষ্টম মৃত্যুবার্ষিকী।
শিল্পী অজিত রায়ের জন্ম ১৯৩৮ সালের ২৯ জুন রংপুর শহরে। গানে হাতেখড়ি শৈশবেই। পঁচিশ বছর বয়সে বেতারে এবং পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ টেলিভিশনে রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী হিসেবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ব্যাপক পরিচিতি ও জনপ্রিয়তা অর্জন করেন তিনি। বাংলাদেশের যেকোনো সংকটকালীন সময়ে তাঁর ভূমিকা ছিল বাঙালির শেকড়স্পর্শী, প্রগতিপন্থী ও গৌরবময়। ১৯৬৯ সালের গণ অভ্যুত্থানের সময় তাঁর কণ্ঠের কবিতা আবৃত্তি ও সংগ্রামী প্রেরণামূলক গান স্বাধীনতাকামী জনতাকে উদ্বুদ্ধ করে দেশপ্রেমের চেতনায়। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়ও একইভাবে মুক্তিপ্রত্যাশী মানুষ ও মুক্তিযোদ্ধাদের অনুপ্রাণিত করেছিল তাঁর গান। ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ বেতারে যোগ দেন অজিত রায়। দীর্ঘ তেইশ বছর তিনি এই প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত ছিলেন।
এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে বুলবুল ললিতকলা একাডেমী, ছায়ানট, উদীচী ও সংগীত মহাবিদ্যালয়ে প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করেছেন নিবেদিতপ্রাণ এই শিল্পী। অজিত রায় কেবল একজন সংগীত শিল্পী বা সংগঠকই ছিলেন না, তাঁর হাত ধরে এদেশে তৈরি হয়েছে অনেক গুণী শিল্পী। ২০০০ সালে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা স্বাধীনতা পদকে ভূষিত হন তিনি। মানুষকে স্বদেশমুখী চেতনায় ফেরাতে ও জাগাতে তিনি ছিলেন সনিষ্ঠ এক শিল্পীসত্তা। ফুসফুসের জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে ২০১১ সালের ৪ সেপ্টেম্বর প্রয়াত হন অজিত রায়।

x